মসজিদে আযান দিতে বাধা,ইমাম-মুয়াজ্জিনকে মা’রধর,মসজিদ বন্ধ করে দেওয়ার হু’মকি

সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ উপজেলার ভাদেশ্বর ইউনিয়নের পূর্বভাগে মা’দকসেবী ও মা’দক ব্যবসায়ী, স্হানীয় ডা’কাত-চাঁ’দাবাজ স”ন্ত্রাস মস্তাক আহমদ (৪০) কতৃৃক ম’সজিদ পু’ড়িয়ে দেওয়া, আযান দিতে বাঁধা প্রদান, মসজিদ বন্ধ করে দেওয়া ও মসজিদের ইমাম-মুয়াজ্জিনকে হু’মকির প্রতিবাদে অ’পরাধীকে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে পূর্বভাগ ফতেহখানী এলাকাবাসী।

শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) বাদ জুম্মা পূর্বভাগ বাজারে এক বিশাল মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মোস্তাক আহমদ (৪০) একই এলাকার মৃ’ত ইদ্রিস আলী ইদাই এর ছেলে। স্হানীয়রা জানান, মোস্তাক আহমদ ফতেহখানী এলাকার নামকরা একজন মা’দক ব্যবসায়ী। মা’দক ব্যবসার দায়ে সে অনেক বার জেল কাটে।

ফতেহখানী জামে মসজিদের পাশে তার বাড়ি। গত ১০ অক্টোবর মসজিদ বাড়ির পাশে থাকা সত্বেও সে সব সময় উচ্চস্বরে গান-বাজনা করে। মসজিদের পরিবেশ নষ্ট হওয়ার কারণে মসজিদের ইমাম গান-বাজনা না করতে নিষেধ করেন। পরদিন সে মসজিদে এসে ইমাম-মুয়াজ্জিনকে মা’রপিট ও মসজিদে ছেড়ে চলে যাওয়ার হু’মকি প্রদান করে। সেই সাথে মসজিদের মক্তব থেকে শিশুদের বের করে দেয়।

জানা যায়, পূর্বভাগ বাজারে সে দেশীয় দাঁড়ালো অ’স্ত্র নিয়ে ঘুরাফেরা করে। মসজিদ কমিটির দায়িত্বশীল ও স্হানীয় পঞ্চায়েতকে গা’লিগালাজ করে। যে তার বিরুদ্ধে কথা বলবে থাকে মে’রে ফেলবে বলে হু’মকি প্রদান করে থাকে। এবিষয়ে স্হানীয়রা অতিষ্ঠ হয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর, গোলাপগঞ্জ মডেল থানা বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

মানববন্ধনে বক্তারা অতিসত্বর আসামীকে ধরে আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানান।

মানববন্ধনে মসজিদ কমিটির সভাপতি জাফর সাদিক চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও কোষাধ্যক্ষ এনামুল হক লায়েকের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন মসজিদ কমিটির উপদেষ্টা সিদ্দিক আহমদ চৌধুরী, আলী আহমদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আহমদ চৌধুরী, সাবেক ইউপি সদস্য লোকমান উদ্দিন, ভাদেশ্বর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিম উদ্দিন, খালেদ আহমদ তই, জুবেদ আলী। উপস্থিত ছিলেন বাদশা আহমদ, আলাই উদ্দিন, গিয়াস উদ্দিন, আমিনুল ইসলাম, সাব উদ্দিন, আব্দুল আলীম, মুজিবুর রহমান প্রমুখ।