এই তানজিন তিশা সেই তিশা নয়!

রিয়েল সিলেটঃ তানজিন তিশা এখন অভিনয়, চরিত্রের কাঠামোগত রূপদান ও সময়োপযোগী গল্প নির্বাচনের কারণে সমসাময়িক অভিনেত্রীদের চেয়ে অনেকটাই ব্যতিক্রম। নাট্যপাড়ায় কান পাতলেই শোনা যায়,

তানজিন তিশার পরিণত হওয়ার গল্প। গড়পড়তার বাইরে গিয়ে প্রতিনিয়ত নিজেই নিজেকে ছাড়িয়ে যাচ্ছেন। তিশার এখন কাজের সংখ্যা বিচার নয়, মানের দিকেই কড়া নজর। এ কথার প্রমাণ পাওয়া যায় বিগত কয়েক বছরের কাজের ফিরিস্তি দেখে।

ইউটিউব হোক আর টেলিভিশনের পর্দা- প্রচারিত কাজের জন্য তানজিন তিশাকে নিয়ে আলোচনা হবেই। তিশাও প্রতিনিয়ত নিজেকে ভাঙতে সচেষ্ট। চরিত্রের প্রয়োজনে কতকিছুই আজকাল করতে হচ্ছে তাকে। পরিচালকরা যখন শিডিউল নিয়ে নাটকের চিত্রনাট্য দেন তিশার হাতে,

তিশা তখন সেই চরিত্রেই ডুব দেন। বেশ কয়েকদিন সেই চরিত্রটি ধারণ করেন নিজের ভেতরে। আর পর্দায় বাস্তবের মতো সেই চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলতে থাকেন সচেষ্ট। এতে করে তিশার কাজের সংখ্যা কিছুটা কমেছে বৈকি তাতেও আক্ষেপ নেই তার- আছে অফুরন্ত পূর্ণতা। সে পূর্ণতার স্বাদ তিশা পেয়েছেন এবং পাচ্ছেন। তিশা বলেন,

‘দর্শকের কথা ভেবেই ভালো কাজের চেষ্টা করেছি। মন দিয়ে অভিনয় করেছি। গল্পের চরিত্রটি নিখুঁতভাবে ফুটিয়ে তোলার অন্যরকম আনন্দ আছে। দর্শকদের প্রশংসাও আসে এতে। আর একজন অভিনেত্রী হিসেবে এটা যে কত ভালো লাগার, তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। ভালো লাগার এ ধারাবাহিকতা আগামীর কাজ দিয়েই ধরে রাখতে চাই।’

এদিকে প্রথমবারের মতো ওয়েব সিরিজে অভিনয় করলেন তানজিন তিশা। সাত পর্বের এই সিরিজের নাম ‘শিকল’। এতে নন্দিনী চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। সিরিজ জুড়েই থাকছে নন্দিনী চরিত্রের নানা বাঁক। তানজিন তিশা জানান, নন্দিনীকে ঘিরেই ওয়েব সিরিজটির গল্প। গ্রামের সহজ-সরল মেয়ে নন্দিনী একদিন শহরে আসে। কিন্তু শহরে তার আশ্রয়দাতা তাকে হেনস্তা করে।

সেখান থেকে নন্দিনী পালিয়ে একটি অফিসে চাকরি নেয়। একসময় অফিসের সহকর্মীর সঙ্গে তার বিয়ে হয়। কিন্তু আগের কথা জেনে ছেলেটি নন্দিনীকে ছেড়ে চলে যায়। ঘটনাচক্রে নন্দিনীকে যেতে হয় জেলে। এভাবে জীবনের নানা বাঁক পেরিয়ে একদিন সে হয়ে ওঠে চলচ্চিত্রের দেশসেরা নায়িকা। তানজিন তিশা বলেন, ‘গল্পটা পড়ে ভালো লেগেছে। এক গল্পে একজন নারীর এতগুলো চরিত্র! লোভ সামলাতে পারিনি। সিরিজটির পরিচালক সঞ্জয় সমাদ্দার।

শুটিংয়ে তানজিন তিশার ডেডিগেশন দেখে তিনি অবাক। সঙ্গে তার প্রাণবন্ত অভিনয়। তিনি যেমন নন্দিনী চেয়েছেন তিশার থেকে, ঠিক তেমনই নন্দিনী হয়েই উঠেছিলেন শুটিংয়ে। পরিচালক বললেন, ‘শিকলে অন্য এক তানজিন তিশাকে দেখতে পাবেন দর্শক। আগের তানজিন তিশাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। পাওয়া গেছে ভিন্ন এক তিশাকে, ভিন্ন এক অবয়বে। গল্পের ঢং অনুসারে নিজের চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলতে রীতিমতো ভেলকি দেখিয়েছেন এ অভিনেত্রী।’

রি/সি/অ ৪৫৪৭৮