বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণের উদ্ভোধন করলেন মোদি

হা’মলা চালিয়ে গুড়িয়ে দেওয়া ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণকাজ উদ্বোধন করতে উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায় পৌঁছেছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বুধবার দুপুর ১২টায়

রামলালার দর্শন করে বিশেষ পূজায় যোগ দেন তিনি। ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, বৃক্ষরোপণ শেষে স্থানীয় সময় দুপুর সাড়ে ১২টায় শুরু হয় রাম মন্দিরের ভূমিপূজার মূল অনুষ্ঠান। এরপর ইট গেঁথে আনুষ্ঠানিকভাবে মন্দিরের নির্মাণকাজ উদ্বোধন করেন মোদি।

জানা যায়, উদযাপন উনুষ্ঠানে আমন্ত্রিতের সংখ্যা মোদিসহ ১৭৫ জন। মূল মঞ্চে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও রয়েছেন আরএসএস প্রধান মোহন ভগবত, রামমন্দির তীর্থ ক্ষেত্র ট্রাস্টের প্রধান নিত্যগোপাল দাস, উত্তরপ্রদেশের রাজ্যপাল অনন্দীবেন প্যাটেল ও মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

বাবরি মসজিদ-রাম মন্দির নিয়ে হিন্দু-মুসলমানের শতাব্দী প্রাচীন বি’রোধের আইনি নি’ষ্পত্তি হয় গত বছরের নভেম্বরে। ভারতের সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চের রায়ে অযোধ্যার বিতর্কিত স্থানে রাম মন্দির নির্মাণ ও বিকল্প স্থানে মু’সলমানদের মসজিদ নি’র্মাণের জমি দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। মন্দির নির্মাণে একটি ট্রাস্ট গঠনের

নির্দেশনাও দেওয়া হয় ওই রায়ে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা অনুসারে গঠিত হয় শ্রী রাম জন্মভূমি তীর্থ ক্ষেত্র ট্রাস্ট। মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের জন্য তারা পাঁচ আগস্ট চূড়ান্ত দিন নির্ধারণ করে। সেই অনুযায়ী, আজ দুপুর সাড়ে ১২টায় অযোধ্যায় ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের মূল অনুষ্ঠান শুরু হয়। বিজেপি সরকার কর্তৃক কাশ্মীরের রাজ্য ও বিশেষ স্বায়ত্তশাসন মর্যাদা কেড়ে নেওয়ার বর্ষপূর্তির

দিনই বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণকাজ উদ্বোধন করা হলো। রাম মন্দির নির্মাণ ঘিরে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন ভারতের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা। দেশটির সংবাদমাধ্যম ফলাও করে অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করছে। এর আগে বিশ্বব্যাপী ম’হামারী করোনা ভা’ইরাসের মধ্যেই গত (২০ জুন) অযোধ্যায় বহুল আলোচিত বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার কথা ছিল। তবে

হঠাৎ লাদাখে ভারত-চীন সীমান্ত যুদ্ধ উন্মাদনা তৈরি হওয়ায় রাম মন্দির নির্মাণের কাজ সাময়িক সময়ের জন্য স্থগিত রাখার ঘোষণা দেয় ট্রাস্ট। প্রস্তাবিত মন্দিরটি হবে নির্মিত হবে মোট ১২৫ ফুটের। যদিও তা বাড়িয়ে ১৬০ ফুট করার প্রস্তাব আসে নানা মহল থেকে। মন্দিরের প্রথম তলা হবে ১৮ ফুটের। সেখানে থাকবে রাম লালার মূর্তি। দ্বিতীয় তলা হবে ১৫ ফুট ৯ ইঞ্চির। সেখানে গড়ে তোলা হবে রামের দরবার।