ছেলে ও পুত্রবধূর হাতে মা’র খেয়ে মায়ের আত্মহ’ত্যা, অতঃপর

নাটোরের সিংড়া উপজেলায় ছেলে ও পুত্রবধূর নি’র্যাতন সইতে না পেরে গলায় ফাঁ’স দিয়ে আত্মহ’ত্যা করলেন মা। সোমবার (০১ জুন) বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে সিংড়া উপজে’লার মাঝগ্রামে। আত্মহ’ত্যাকারী জুলেখা বেগম (৪৭) একই গ্রামের শহিদুল ইসলামের স্ত্রী’।

মৃ’ত জুলেখার স্বামী শহিদুল ইস’লাম জানান, তার ছে’লে জুয়েল রানা সম্প্রতি প্রে’ম করে ফাতেমা নামে এক মেয়েকে বিয়ে করেন। এ নিয়ে পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়। বাড়িতে অশান্তি লেগেই ছিল। শহিদুল ই’সলাম গতকাল রোববার বাড়িতে ছিলেন না।

এ সময় ঝগড়ার একপর্যায়ে তার ছেলে জুয়েল রানা, জুয়েলের ভায়রা সজীব এবং জুয়েলের স্ত্রী’ ফাতেমা বেগম মিলে জুলেখা বেগমকে মা’রধর করেন। ঘটনার পর থেকে জুলেখা না খেয়ে খাকেন। সোমবার সারাদিন কিছু না খেয়ে থাকার পর বিকেল ৪টার দিকে ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁ’স দিয়ে আত্মহ’ত্যা করেন জুলেখা।

সিংড়া থা’না পু’লিশের ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) নুরে আলম সিদ্দিকী’ বলেন, ম’রদেহ উ’দ্ধার করে ময়নাত’দন্তের জন্য ম’র্গে পাঠানো হয়েছে। ত’দন্ত করে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।