নরসিংদীতে ৫ হাজার টাকার জন্য কিশোরকে কু’পিয়ে হ’ত্যা!

রিয়েল সিলেটঃ মঙ্গলবার রাতে নরসিংদীতে এক কিশোরকে কু’পিয়ে হ’ত্যার ঘটনায় ৪ জনকে গ্রে’ফতার করেছে গো’য়েন্দা পুলিশ। কিশোরের নাম ইয়াসিন মিয়া।

মঙ্গলবার রাতে শহরের বিভিন্ন এলাকায় অ’ভিযান চালিয়ে তাদের গ্রে’ফতার করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার রাতেই পৌর শহরের ইনডেক্স প্লাজার সামনে এ হ’ত্যার ঘটনা ঘটে। নি’হত ইয়াসিন মিয়া শহরের পশ্চিম দত্তপাড়ার মিলন মিয়ার ছেলে।

আ’টককৃতরা হলো আড়াইহাজারের আবদুল্লাহপুর এলাকার জহুর আলমের ছেলে মারুফ আল হোসাইন ওরফে মোটা ফারুখ (২১), মনোহরদী একদুয়ারিয়ার গিয়াস উদ্দিনের ছেলে দেলোয়ার হোসেন আদনান (২১),

সদর উপজেলার নাগরিয়াকা’ন্দি এলাকার মোর্শেদ আলমের ছেলে মারুফ ওরফে ভাগিনা মারুফ (২০) ও পৌর শহরের বানিয়াছল এলাকার গাজী আসাদের ছেলে শোয়েব (৩৫)। গো’য়েন্দা পুলিশ জানিয়েছেন, নি’হতের দীর্ঘদিনের ঘনিষ্ট বন্ধু ছিলেন আ’সামিরা। ঘটনার নয় মাস পূর্বে মারুফ আল হোসাইন ওরফে মোটা ফারুখ তাদের বন্ধু আলিফকে ৫ হাজার টাকা ধা’র দেয়।

পরবর্তীতে আলিফ টাকা পরিশোধ করতে না পেরে তার ডিএসএলআর ক্যামেরাটি ভাগিনা মারুফের নিকট বন্ধক দেয়। এই ক্যামেরা নিয়ে তাদের মধ্যে গত সোমবার ঝগ’ড়া হয়। এসময় ইয়াসিন ও আলিফের বন্ধুরা ভাগিনা মারুফ ও দেলোয়ারকে মা’রধোর করেন। এরই জের ধরে বুধবার দিবাগত রাতে দেলোয়ার ও ভাগিনা মারুফের পরামর্শে মোটা ফারুখ ইয়াসিনকে কু’পিয়ে হ’ত্যা করেন।

এতে ঘটনাস্থলেই ইয়াসিন মা’রা যায়। গো’য়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) রূপম কুমার সরকার বলেন, নি’হতের ঘটনায় পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ হ’ত্যাকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশ চারজনকে গ্রে’ফতার করে। আ’সামিরা প্রত্যেকেই এ হ’ত্যাকাণ্ডে জ’ড়িত ছিলো বলে স্বী’কারোক্তিমূলক জবানব’ন্দি দিয়েছে। নি’হতের পরিবারের পক্ষ থেকে তাদের বি’রুদ্ধে একটি হ’ত্যা মামলা প্র’ক্রিয়াধীন রয়েছে।