বাচ্চাদের পেটে ভাত নেই, ১৫০ টাকায় মাথার চুল বিক্রি করে দিলেন মা!

রিয়েল সিলেটঃ জেএনইউ, হিন্দু-মুসলিম, মন্দির-মসজিদ নিয়ে দ্ব’ন্দ্বের মাঝে এমন খবর হয়তো ট্রে’ন্ডি এ থাকবে না। কিন্তু বলতে পারেন, এটাই এখন দেশের আসল ছবি।

একজন মা তাঁর তিন সন্তানের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার জন্য নিজের মাথার চুল বিক্রি করে দিল। দুই, তিন ও পাঁচ বছরের তিন সন্তান তাঁর। কারও মুখেই খাবার তুলে দিতে পারছিলেন না প্রেমা। তার কোনো রোজগার নেই।

পড়শিরাও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে অস্বীকার করেছে। তাই আর কোনও উপায় ছিল না তাঁর কাছে। নিজের মাথায়র সমস্ত চুল বিক্রি করে প্রেমা হাতে পেলেন ১৫০ টাকা। তাতে অন্তত একটা দিন তাঁর সন্তানের পেটের ভাত জু’টল। তামিলনাড়ুর সালেমের ঘটনা।

প্রেমার স্বামী ধার দেনায় ডু’বে গিয়েছিলেন। পাওনাদারদের অ’সহ্য চা’প স’হ্য করতে না পেরে মাস সাতেক আগে তিনি আ’ত্মহত্যা করেন। তার পর থেকে তিন সন্তানকে নিয়ে অ’থৈ জ’লে প’ড়েছেন প্রে’মা। হাজার চেষ্টা করেও কোনও কাজ জো’টাতে পারেননি। কোনও পথ খুঁজে না পেয়ে পড়শিদের কাছে হাত পেতেছিলেন প্রেমা। কিন্তু লাভ হয়নি।

দিনের পর দিন পেটের জন্য লড়াই। আর ভাল লাগছিল না প্রেমার। তাই তিন সন্তানকে ফেলে রেখে আ’ত্মহত্য়া করার সিদ্ধান্তও নিয়েছিলেন প্রেমা। কিন্তু তাঁর সেই ফ’ন্দি শেষ পর্যন্ত সফল হয়নি। হাতে পাওয়া ১৫০ টাকা দিয়ে দোকানে কীটনাশক কিনতে গিয়েছিলেন প্রেমা। পরিকল্পনা ছিল, কীটনাশক খেয়ে আ’ত্মহত্যা করবেন।

কিন্তু প্রেমার হাবভাব দেখে দোকানদারের স’ন্দেহ হয়। তিনি তাই কী’টনাশক বিক্রি করেননি। এর পর বি’ষাক্ত গাছ খেয়ে ম’রতে চেয়েছিলেন প্রেমা। কিন্তু তাতে বাধা দেয় তাঁর বোন। দিনের পর দিন দারিদ্রের সঙ্গে ল’ড়াই! কতদিন আর মন শক্ত করে লড়তেন তিনি। প্রেমার দু’র্ভাগ্যের কথা জানাজানি হওয়ার পর অবশ্য অনেকেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন। সালেমের জেলা প্র’শাসন তাঁকে বিধবা ভাতা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।