ইউরোপে আলু চাষ দেখতে যাচ্ছেন ৪০ কর্মকর্তা।

রিয়েল সিলেটঃ চলতি বছরের ২৫ জুলাই কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছিলেন, বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক আলু সেন্টার হবে। এর কয়েকমাস পর জানা গেলো, আলুর চাষ দেখতে ইউরোপ সফরে যেতে চান সরকারি ৪০ কর্মকর্তা।

বলা হচ্ছে, আলু উৎপাদনে বাংলাদেশ বিশ্বের মধ্যে অষ্টম স্থানে থাকলেও রপ্তানিতে একেবারে তলানিতে। তাই রপ্তানিযোগ্য আলুর উৎপাদন বাড়াতে ইউরোপে আলুর চাষাবাদ পদ্ধতি দেখতে যাবেন এসব কর্মকর্তারা।

মানসম্মত আলুবীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও তা কৃষক পর্যায়ে পৌঁছাতে ৩ কোটি টাকার একটি প্রকল্প নেয়া হয়েছে। এর আওতায় কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের বিএডিসি ৪০ জন কর্মকর্তা বিদেশ যাবেন, জনপ্রতি সাড়ে ৭ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

এ নিয়ে ঢাকার একটি জাতীয় দৈনিকে বিস্তারিত একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। তাতে প্রকল্পের নানা দিক তুলে ধরে অসঙ্গতির কথাও বলা হয়েছে। যদিও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, ৪০ কর্মকর্তা ধাপে ধাপে ইউরোপ যাবেন।

এ সফরে তারা আলু উৎপাদনকারী উন্নত দেশগুলোর চাষাবাদ দেখার পাশাপাশি প্রযুক্তিগত জ্ঞানও অর্জন করবেন। বিএডিসি জানিয়েছে, দেশে বর্তমানে বছরে ১০৩ দশমিক ১৭ লাখ টন আলু উৎপাদন হচ্ছে। যা দেশের চাহিদা মিটিয়ে রপ্তানি করা সম্ভব।

কিন্তু আলু রপ্তানি করা যাচ্ছে না। এজন্যই ৬৮৮ কোটি ২১ লাখ টাকা ব্যয়ে নতুন এ প্রকল্প নেয়া হয়েছে। যার আওতায় মানসম্মত আলু উৎপাদনে ৮ হাজার ৪০০ কৃষকের সঙ্গে চুক্তি করা হবে।

এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কার্যক্রম শুরু হচ্ছে খুব শিগগিরই। এ বিষয়ে বিএডিসির মহাব্যবস্থাপক বীজ মো. নূরনবী সরদার বলেন, চার ধাপে ৪০ কর্মকর্তা ইউরোপ যাবেন। তবে তারা কোন কোন দেশে যাবেন, তা এখনো ঠিক হয়নি।