২ দিনে ফিরেছে ৪২ ম’রদেহ, সবচেয়ে বেশি প্রবাসীর লা’শ এসেছে ২০১৯ সালে

১৯৭৬ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত সরকারি হিসাবে বাংলাদেশ থেকে এক কোটি ২৮ লাখ তিন হাজার ১৮৪ জন চাকরি নিয়ে বিদেশে গেছেন। তবে বিপুলসংখ্যক প্রবাসীর মধ্যে প্রতি মাসেই ফিরে আসছেন বহু শ্রমিক। বিদেশে যাওয়া শ্রমিকদের তথ্য-উপাত্ত বাংলাদেশ জনশক্তি,

কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) ডাটাবেইসে উল্লেখ থাকলেও ফেরত আসা শ্রমিকদের কোনো তথ্য-উপাত্ত নেই। একই সঙ্গে প্রায় প্রতিদিনই দেশে আসছে প্রবাসে মা’রা যাওয়া কর্মীদের লা’শ।গত শুক্রবার ও শনিবার এই দুই দিনেই ৪২ প্রবাসী শ্রমিকের লা’শ দেশে এসেছে। গত ১১ বছরে সবচেয়ে বেশি লা’শ এসেছে চলতি বছরে। ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত তিন হাজার ৮৩৮ প্রবাসী কর্মীর ম’রদেহ দেশে আসে। এর মধ্যে রয়েছে ১২৯ না’রী কর্মীর লা’শ।

খরচ করে বিদেশে যাওয়ার পর ঋণের টাকা পরিশোধের চাপ, প্রতিদিন ১২ থেকে ১৬ ঘণ্টা বিরামহীন পরিশ্রম, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসবাস, দীর্ঘদিন স্বজনদের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন থাকাসহ নানা কারণে তাঁরা অসুস্থ হয়ে পড়েন। চূড়ান্ত অবস্থায় মৃ’ত্যুর কারণ হিসেবে জানা যায়, বেশির ভাগ প্রবাসী মারা যা’ন হার্ট অ্যাটাকে।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের প্রবাসীকল্যাণ ডেস্ক সূত্রে জানা যায়, ২০০৯ সালে ২৩১৫ জন, ২০১০ সালে ২২৯৯ জন, ২০১১ সালে ২২৩৫ জন, ২০১২ সালে ২৩৮৩ জন, ২০১৩ সালে দুই হাজার ৫৪২ জন, ২০১৪ সালে দুই হাজার ৮৭২ জন, ২০১৫ সালে দুই হাজার ৮৩১ জন, ২০১৬ সালে দুই হাজার ৯৮৫ জন, ২০১৭ সালে দুই হাজার ৯১৯ জন এবং ২০১৮ সালে তিন হাজার ৫৭ জনের ম’রদেহ দেশে আসে। অর্থাৎ গত ১১ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রবাসীর লা’শ দেশে এসেছে এ বছর। ২০১৮ সালের চেয়ে এ বছরের ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত আট শতাধিক প্রবাসীর লা’শ বেশি এসেছে দেশে।