সমসাময়িক শিল্প জগতের সবচেয়ে প্রভাবশালী ১০০ জনের তালিকায় স্থান পেয়েছেন বাংলাদেশের নাদিয়া

সমসাময়িক শিল্প জগতের সবচেয়ে প্রভাবশালী ১০০ জনের তালিকায় স্থান পেয়েছেন বাংলাদেশের নাদিয়া সামদানী ও রাজীব সামদানী দম্পতি। প্রতিবছর ১০০ জন প্রভাবশালী ব্যক্তিদের নিয়ে এই তালিকা করে আসছে লন্ডনভিত্তিক আর্ট রিভিউ ম্যাগাজিন। ২০১৯ সালের ‘পাওয়ার ১০০’ তালিকায় বাংলাদেশি দম্পতির অবস্থান ৪৭তমএর আগে বিশ্বের ২০০ জন শিল্প-সংগ্রাহকের তালিকায় স্থান করে নিয়েছিলেন তারা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত বিশ্বের প্রাচীন ও সর্বাধিক প্রচারিত শিল্প-সংস্কৃতি বিষয়ক ম্যাগাজিন ‘আর্ট নিউজ’ ওই তালিকা প্রকাশ করে।

নাদিয়া সামদানী ও রাজীব সামদানী দম্পতি দুই জনেই সামদানী আর্ট ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা এবং ঢাকা আর্ট সামিটের প্রতিষ্ঠাতা ও উদ্যোক্তা। নাদিয়া ও রাজীব সামদানী দম্পতি বাংলাদেশের তরুণ শিল্পোদ্যোক্তা। একইসঙ্গে তারা দেশের শিল্পের বড় পৃষ্ঠপোষক।ভারতের চারটি দল, ঢাকা ও ঢাকার বাইরের ৩৬টি নাট্যদলসহ আবৃত্তি, সংগীত, নৃত্য, পথনাটকের মোট ১২১টি সংগঠনের প্রায় ৪ হাজার শিল্পী অংশ নিচ্ছেন এই উত্সবে। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তন, পরীক্ষণ থিয়েটার হল, স্টুডিও থিয়েটার হল, সঙ্গীত আবৃত্তি, নৃত্য মিলনায়তন এবং বাংলাদেশ মহিলা সমিতির ড. নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে তারা পরিবেশন করবে মঞ্চনাটক, পথনাটক, আবৃত্তি, সংগীত, নৃত্য, মূকাভিনয়। উন্মুক্ত মঞ্চের সাংস্কৃতিক পর্ব প্রতিদিন বিকাল সাড়ে ৪টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত এবং মঞ্চনাটক প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হবে। উত্সব চলবে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত।

উদ্বোধনী পর্ব শুরু হয় স্পন্দনের শিল্পীদের নৃত্য পরিবেশনার মধ্য দিয়ে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর এবং ভারতের নাট্যজন মেঘনাদ ভট্টাচার্য উত্সবের উদ্বোধন করেন। প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। সম্মানিত অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক নাট্যজন লিয়াকত আলী লাকী, ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পরিচালক ড. নিপা চৌধুরী, বাংলাদেশ পথনাটক পরিষদের সভাপতি নাট্যজন মান্নান হীরা এবং বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সেক্রেটারি জেনারেল নাট্যজন কামাল বায়েজিদ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আহকাম উল্লাহ। স্বাগত বক্তব্য দেন উত্সব পর্ষদের সদস্যসচিব আকতারুজ্জামান এবং সভাপতিত্ব করেন উত্সব পর্ষদের আহ্বায়ক সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব গোলাম কুদ্দুছ।

অতিথিরা বলেন, গঙ্গা-যমুনা উত্সবটি এখন দেশের সর্ববৃহত্ একটি সাংস্কৃতিক উত্সব। আগামী কয়েক দিনে প্রতিদিন কয়েক হাজার শিল্পী, সাংস্কৃতিক কর্মী এখানে সমবেত হবেন নানা পরিবেশনা নিয়ে।