দুর্নীতি প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, দেশে কিছু লোক আছে দুর্নীতিতে নিমজ্জিত। শুক্রবার দুপুর আড়াইটার দিকে শ্রীমঙ্গলের গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট অ্যান্ড গলফ ক্লাবে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

বিমানের উদাহরণ টেনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বিমানের টিকেট কাটতে গেলে টিকেট পাওয়া যায় না। ৪১৯ জনের সিট প্লেন অথচ বিমানে ওঠলে দেখা যায় মাত্র ৫৩ যাত্রী। পুরো সিট খালি। কোটি কোটি টাকা বিমানকে লস (লোকসান) দেখিয়ে চুরি করছে দুর্নীতিবাজরা। এই চোরদের শনাক্ত করা গেছে। তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে চলছে এবং দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী কঠোর অবস্থানে রয়েছেন বলেও উল্লেখ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এ সময় রোহিঙ্গাদের নিয়েও কথা বলেন তিনি। মন্ত্রী বলেন, ওরা কত দিন বাংলাদেশে থাকবে তা আমার জানা নেই। রোহিঙ্গাদের নামে আন্তর্জাতিক সাহায্য দিন দিন কমে যাচ্ছে। সরকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তাদের দ্রুত প্রত্যাবর্তনের। এর আগে দুপুর ২টার দিকে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ভারতসহ ৫৩ দেশের রাষ্ট্রদূত মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে যান। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আমন্ত্রণে রাষ্ট্রদূতরা সেখানে যান। তারা শ্রীমঙ্গলের গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট অ্যান্ড গলফে অবস্থান করবেন বলে জানা গেছে।

কূটনীতিকসহ অতিথিরা গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট অ্যান্ড গলফে পৌঁছালে তাদের বাদ্যযন্ত্র মনিপুরী নিত্য ও ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানানো হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. তোফায়েল ইসলাম, পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শাহ জালাল, এডিসি (রাজস্ব) আশরাফুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জামান, ওসি কে এম নজরুলসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য এবং বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

বিকালে রামনগর মনিপুরী গ্রাম পরিদর্শন এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগদানের পর ইস্পাহানি চা বাগান ও চা বাগান কারখানা পরিদর্শন করেন পরাষ্ট্রমন্ত্রী, রাষ্ট্রদূতসহ অন্যান্য অতিথিরা। শনিবার সকালে ঢাকার উদ্দেশে শ্রীমঙ্গল ত্যাগ করবেন তারা।