আসহাবুর ইসলাম শাওন,কমলগঞ্জ থেকেঃ
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের মালিকানাধীন ধলাই চা বাগানের নতুন লাইন সড়কের ১নং সেকশনে মধ্যে এক অজ্ঞাত পরিচয়ের হিন্দু বিধবা নারীর মস্তক বিহীন লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

শনিবার (২২ সেপ্টেম্বর) ধলাই চা বাগান সেকশনে সরজমিনে গিয়ে শ্রমিকদের সাথে আলাপকালে জানা যায়, শুক্রবার দিবাগত রাতের কোন একসময়ে ১ নং সেকশনের মধ্যে দূস্কৃতিকারীরা মহিলাটিকে মাথা দ্বিখন্ডিত করে হত্যা করা হয়, এর আগে মহিলাটিকে গণধর্ষন করা হতে পারে বলে ধারনা করছেন অনেকেই। কারণ,লাশের পাশে বেশ কয়েকটি ব্যবহৃত কন্ডম,শরীর উত্তেজনাকর সিরাপ,বিদেশী মদের বোতল সহ ক্লোলড্রিংসের বোতল পাওয়া যায়।
চা শ্রমিকরা জানায়, শনিবার দুপুরে নারী চা শ্রমিকরা ১নং সেকশনে চা পাতা তুলতে গেলে মস্তক বিহীন একটি নারীর লাশ পরে থাকতে দেখে বিষয়টি টিল্লাক্লার্ক জাহাঙ্গীর আলম কে জানালে তিনি তাৎক্ষনিক বাগান ব্যবস্হাপক কে ঘটনাটি অবহিত করেন। পরে বাগান ব্যবস্হাপক আমিনুল ইসলাম কমলগঞ্জ থানাকে খবর দিলে কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমানের নেতৃত্বে এস আই ফরিদ মিয়া, এএসআই শফিক আহমেদ,আনিছুর রহমান সহ পুলিশের একটি দল ঘটনাস্হলে উপস্হিত হয়ে লাশের সুরতহাল তৈরী করে মৌলভীবাজার ময়না তদন্তের জন্য প্রেরন করা হয়। তবে মহিলাটির মাথা খুঁজে না পাওয়ায় পরিচয় সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

মাধবপুর ইউপি চেয়ারম্যান পুস্প কুমার কানু জানান, খন্ডিত মাথাটি না মেলায় মহিলাটির পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি, আশপাশের চা বাগান গুলোকে ম্যাসেজ দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান জানান, মহিলাটির পরিচয় সনাক্ত করা যায়নি, মাথা উদ্ধার ও আসামী গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।তিনি আরো জানান,ময়না তদন্তের রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত এটা গণধর্ষন পরবর্তী হত্যা কিনা বলা যাচ্ছেনা।
তিনি আশপাশের চা বাগানের কোন বিধবা মহিলা নিখোঁজ থাকলে কমলগঞ্জ থানার সাথে যোগাযোগের অনুরোধ করেন।