ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি বাজার সিএনজি পাম্প এলাকায় একটি প্রাইভেট কারকে একটি হাইয়েস গাড়ি দিয়ে গতিরোধ করে এক লন্ডন প্রবাসী কন্যাকে অপহরণের চেষ্টা চালায় দুর্বৃত্তরা।

এতে ব্যর্থ হয়ে তাদের বহনকারী প্রাইভেটকার ভাঙচুর করে লন্ডনি কন্যার স্বামী ও গাড়ির চালককে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে অপহরণ করে করে নিয়ে গেছে। স্থানীয় জনতা লন্ডনি কন্যাকে উদ্ধার করে নবীগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার লতিফপুর গ্রামের মাওলানা মাহমুদ হোসাইনের পুত্র মাওলানা আবদুল্লাহ আল মাইমুন তার স্ত্রী জগন্নাথপুর উপজেলার শ্রীধরা পাশা গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী মাওলানা সালাউদ্দিন মনসুরের সরিফা নুসরাত তাইবাকে (২০) নিয়ে সিলেট থেকে প্রাইভেটকারে মামার বাড়ি পার্শ্ববর্তী জেলা মৌলভীবাজারে রায়পুর (মামরকপুর) যাচ্ছিলেন।

পথে প্রাইভেটকারে গ্যাস নেয়ার জন্য রাত ১০টায় নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি গ্যাস পাম্পে আসে। গ্যাস নিয়ে মৌলভীবাজার যাওয়ার পথিমধ্যে গ্যাস পাম্পের কিছুদূরের যাওয়ার পর হঠাৎ করে একটি কালোগ্লাসধারী মাইক্রোবাসটি প্রাইভেটকারের সামনে গিয়ে গতিরোধ করে। এ সময় ৪-৫ জন অস্ত্রধারী মাইক্রো থেকে নেমে প্রাইভেটকার ভাঙচুর করে। প্রাইভেটকারে থাকা লন্ডনি কন্যার স্বামী মাওলানা আবদুল্লাহ আল মাইমুন ও প্রাইভেটকারচালক আবদুর রহিমকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গাড়িতে তোলে।

এ সময় কৌশলে লন্ডনি কন্যা পালিয়ে গিয়ে স্থানীয় আউশকান্দি বাজারের একটি বাসায় আশ্রয় নেয়। এ ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় শত শত মানুষ বাজারে এসে জড়ো হয়। পরে খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানার একদল পুলিশ ও শেরপুর হাইওয়ে থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। এ সময় স্থানীয় চেয়ারম্যান ও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ মেয়েকে উদ্ধার করে নবীগঞ্জ থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনার পর থেকে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ ও হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা অপহরণকারীদের চিহ্নিত করতে স্থানীয় সিএনজি গ্যাস পাম্পের সিসিটিভির ফুটেজসহ বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করেছে। নবীগঞ্জ থানার ওসি মো. ইকবাল হোসেন জানান, ঘটনার রহস্য উদঘাটনে পুলিশ এবং বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা তৎপর রয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা দায়ের হয়নি।