বাবা আলফু মিয়ার একমাত্র আদরের ধন ছিল মে নূর নীলা (২৫)। মধুর সম্পর্ক ছিল মায়ের সঙ্গেও। বেশ সুখী ছিল পরিবারটি। কিন্তু নিয়তির কাছে নির্মম পরাজয় মেনে নিতে হলো।

সড়ক দুর্ঘটনা কেড়ে নিল মা মেয়ের প্রাণ। বুধবার একই সড়ক দুর্ঘটনায় পরপারে পাড়ি জমিয়েছেন তারা।

এক সঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়েছে তাদের নামাজে জানাজা। পরদিন বৃহস্পতিবার পাশাপাশি সমাহিত করা হয়েছে তাদের।

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার সদর ইউনিয়নের উত্তর ভাড়াউড়া এলাকার বাসিন্দা সামিনা নুর নীলা (২৫)। বাড়ি ফেরার পথে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার রামপুরা এলাকায় এনা পরিবহনের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে একটি খাদে পানিতে ঢুবে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই অপর এক যাত্রীসহ নিহত হন নীলা ও তার মা রুবিনা বেগম (৪৫)। আহত হন বাবা আলফু মিয়া (৬৫) ও ছোট ভাই আসিফ (২০)।

১২ সেপ্টেম্বর ঢাকার এক ব্যবসায়ীর সঙ্গে বিয়ে ঠিক হয়েছিল নীলার। দুইপরিবারেই চলছিল বিয়ের আয়োজন। অপেক্ষা ছিল নববধূকে বরণ করে নেয়ার। মাত্র কয়েকটা দিন ছিল বাকি। কিন্তু এর মধ্যেই সব লণ্ডভণ্ড হয়ে যায়।

স্ত্রী ও মেয়ের মৃত্যুশোকে পাথর আলফু মিয়া। কথা বলতে গেলেই কেঁদে ফেলছে ছোটভাই আসিফ। আলফু মিয়া নিজেও অসুস্থ তবে মেয়ে ও স্ত্রীর মৃত্যুতে তিনি মুখে তুলছেন না কোন দানাপানি।