জামাই-শাশুড়ির প’রকীয়ায় কারণে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে এক মায়ের বিরুদ্ধে তার ছেলেকে ফলের সঙ্গে বি’ষ মিশিয়ে খাইয়ে হ’ত্যা’চেষ্টা’র অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার সকালে উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার রানীপুরা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত মা ও মেয়ের জামাই আবদুল্লাহকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জানা যায়, আবদুল্লাহ আগে হিন্দু ছিল। তার নাম ছিল সঞ্জয় বর্মন।

সে রূপগঞ্জ উপজেলার পূর্বাচল উপ-শহরের বাণিজ্যমেলার নির্মাণকাজের শ্রমিক হিসেবে কাজ করে আসছিল। পরে তার সঙ্গে স্থানীয় এক নারীর প’রকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক পর্যায়ে ওই নারী সঞ্জয়কে হিন্দু ধর্ম থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করায়।

তার নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় আবদুল্লাহ। পরে ওই সম্পর্ক আরও জোরালো করতে ওই নারী তার মেয়েকে আবদুল্লাহর সঙ্গে বিয়ে দেন। ওই নারীর স্বামী চা-দোকানি। স্বামীর অনুপস্থিতিতে মেয়ের জামাই আবদুল্লাহর সঙ্গে বিভিন্ন সময় অ’বৈধ সম্পর্কে লিপ্ত হতো ওই নারী। তাদের এ প’রকীয়া সম্পর্ক স্বামীও টের পেয়ে যায়।

মঙ্গলবার মধ্যরাতে জামাই-শাশুড়ির অ’বৈধ সম্পর্ক দেখে ফেলে ছেলে। এর জেরে মা তার ছেলেকে আপেলের সঙ্গে বি’ষ মিশিয়ে খাইয়ে হ’ত্যার চেষ্টা চালায়। এ কাজে মাকে সহযোগিতা করে প’রকীয়া প্রেমিক আব্দুল্লাহ।