পূর্ব আফ্রিকার দেশ উগান্ডার ৩৯ বছর বয়সী নারী মারিয়ম নবট্যানজি। নিজের ৩৮ সন্তানের ভরণপোষণ একাই করে চলেছেন স্বামী পরিত্যক্তা এই নারী।

জানা গেছে, কামপালার উত্তরে ৫০ কিলোমিটার দূরে কফি বাগান দিয়ে ঘেরা এক ছোট গ্রামে ঘর বানিয়ে ৩৮ সন্তানকে নিয়ে সংসার মারিয়মের। মারিয়মের জীবন ছোটবেলা থেকেই কষ্টের। তিন দিন বয়সে তাকে ফেলে রেখে চলে গিয়েছিলেন তার মা। দাদির কাছেই বড় হয়েছেন মারিয়ম।

১২ বছর বয়সে তাকে এক রকম জোর করেই বিয়ে দিয়ে দেন তার দাদি। তার এক বছর পরই মারিয়ম যমজ সন্তানের জন্ম দেন। যমজ সন্তান পেয়ে খুব খুশি হয়েছিলেন মারিয়ম। এর পর টানা চার বার তিনি যমজ সন্তানের জন্ম দেন। মারিয়ম বুঝতে পারেন কোথাও একটা সমস্যা হচ্ছে। তিনি চিকিৎসকের কাছে যান।

চিকিৎসক তাকে জানান, তার ডিম্বাশয়ের আকার অত্যন্ত বড় এবং তিনি নিজেও ভীষণভাবে ফার্টাইল। এ অবস্থায় যদি তার গর্ভনিয়ন্ত্রণের অ’পারেশন করা হয়, তাহলে তার ক্ষেত্রে প্রাণঘাতীও হতে পারে বিষয়টি। কোনো গর্ভনিয়ন্ত্রক ওষুধও তার পক্ষে মা’রাত্মক হতে পারে বলে জানান চিকিত্সৎকরা।

ফলে কী করবেন সেটা বুঝে উঠতে পারছিলেন না মারিয়ম। এরই মধ্যে তখনই তিনি আট সন্তানের জন্ম দিয়ে ফেলেছেন। স্বামীকে বিষয়টা জানান। বারবার এভাবে একাধিক সন্তানের জন্ম দেওয়াটা বন্ধ হওয়া উচিত বলেও জানান মারিয়ম। কিন্তু স্বামী তার কথায় একেবারেই কান দেননি।