হোস্টেলের পানি খরচ কমাতে ও উকুনের কারনে ১৫০ ছাত্রীকে ন্যাড়া করলেন প্রধান শিক্ষক!

হোস্টেলে থাকা ছাত্রীদের কারণে অতিরিক্ত পানি খরচ হয় – এমন অজুহাতে দেড়শ ছাত্রীকে ন্যাড়া করে দিয়েছেন একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের তেলেঙ্গোনা রাজ্যের মেদক জেলার গুরুকল নামক একটি স্কুলে।

মঙ্গলবার ওই স্কুলের ছাত্রীদের অভিভাবকরা এ ঘটনার প্রতিবাদ হিসাবে স্কুলের সামনে বিক্ষোভ করছে বিষয়টি সামনে চলে আসে।জানা গেছে, ওই স্কুলের হোস্টেলে ১৫০ ছাত্রী থাকত। কিন্তু হোস্টেলটিতে পানির অভাব। তার মধ্যেই আবাসিক ছাত্রীরা মাথায় উকুনের কারণে হোস্টেলের পানি বেশি বেশি খরচ করছিল।

তাই স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা রীতিমতো নাপিত ডেকে এনে ওই ১৫০ ছাত্রীর মাথার চুল কাটিয়ে দেন। পাশাপাশি ছাত্রীদের কাছে তিনি ২৫ রুপি করে জরিমানা ধার্য করেন বলেও অভিযোগ। অভিযোগের বিষয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা কে. অরুণা বলেন, আমি জানতে পেরেছিলাম, হোস্টেলের বেশিরভাগ ছাত্রীর মাথায় উকুন আছে। তা ছাড়া অনেকে চর্মরোগেও ভুগছে। যে কারণে তারা হোস্টেলে বেশি বেশি পানি ব্যবহার করছিল।

তাই অতিরিক্ত পানির ব্যবহার বন্ধ করতে এবং হোস্টেলটি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও রোগমুক্ত রাখতে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ বিষয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষ আগেই ওই ছাত্রীদের সম্মতি নিয়েছিল বলেও দাবি করেন তিনি। ছাত্রীদের অভিভাবকরা অভিযোগ করেছেন, তাঁদের সন্তানদের মাথার চুল জোর করে ছেঁটে দিয়েছেন প্রধান শিক্ষক। তবে এ ঘটনায় ছাত্রীদের অভিভাবকরা প্রশাসনের দ্বারস্থ হওয়ায় স্থানীয় মেদক জেলার জেলা প্রশাসন গোটা ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।

 

 

 

Sharing is caring!

Comments are closed.