স্বর্ণ বন্ধক রেখে ডিবির কাছ থেকে নাতিকে ছাড়ালেন নানি

কিশোরগঞ্জের ভৈরব থেকে ডিবি পরিচয়ে অপহৃত প্রবাসী যুবক সৌরভের সন্ধান পেয়েছে তার পরিবার। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় তাকে ভৈরব থেকে ধরে নিয়ে যায় নরসিংদীর ডিবি পুলিশ। তাকে ধরে নিয়ে যাওয়ার পর পরিবারের সদস্যরা ঘটনাটি ভৈরব থানায় জানায় জানিয়ে বুধবার একটি লিখিত অভিযোগ করে।

অভিযোগ পেয়ে ভৈরব থানা পুলিশ বুধবার রাত পর্যন্ত অপহৃত যুবককে খোঁজাখুঁজি করে। এরপর বুধবার রাত ১০টায় পুলিশ জানতে পারে সৌরভকে নরসিংদি ডিবি পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে। সন্ধ্যায় তাকে তার নানির কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়। সৌরভ ভৈরবের মধ্যেরচর গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে।

সৌরভের নানি পারভিন বেগম বলেন, নিজের ব্যবহৃত স্বর্ণ বন্ধক রেখে ও ধার করে ২০ হাজার টাকা নরসিংদীর ডিবি পুলিশকে দেয়ার পর আমার নাতীকে তারা মুক্তি দেয়। তবে মোটরসাইকেলটি রেজিস্ট্রেশন না থাকার অজুহাতে এখনও ফেরত দেয়নি।ভৈরব থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোখলেছুর রহমান বলেন, নরসিংদির ডিবি পুলিশের ডিউটি ভৈরবে থাকতে পারে না।

তবে তারা কোনো অভিযান চালালে বা আসামি ধরতে এলে ভৈরব থানাকে অবহিত করতে হবে। কেন তারা এ কাজটি করল আমি জানি না। তিনি বলেন, অপহরণের অভিযোগ পেয়ে ভৈরব থানা পুলিশ তাকে উদ্ধারে তৎপরতা চালায়। এতে পুলিশও চিন্তিত ছিল রাত পর্যন্ত। কাজটি ডিবি পুলিশ সঠিক করেনি বলে মন্তব্য করেন ওসি।

নরসিংদী ডিবি পুলিশের এসআই গাফফার বলেন, সাদ্দাম মা দ ক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তাকে ধরতে গিয়ে ব্যবহার খারাপ করায় তার ভাগনে সৌরভকে আটক করেছিলাম। টাকা রেখে তাকে ছাড়া হয়েছে কথাটি সঠিক নয়। এক সোর্সের ১৫ হাজার টাকা সাদ্দাম মা দ ক বিক্রির কথা বলে রেখে দেয়। এ টাকা আদায় করে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকির হোসেনকে বিষয়টি অবহিত করা হলে তিনি বলেন, আমি ঘটনাটি কিছুই জানি না। তবে ঘটনা যদি সত্য হয় তবে দোষী ডিবি পুলিশদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Sharing is caring!

Comments are closed.