কমান্ডো মুভি: ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে ইসলামী সাংস্কৃতিক জোট

  International

ধর্ম অবমাননার দায়ে ইসলাম ও মুসলমানদের অবমাননাকর মুভি কমান্ডো এর প্রকাশক, পরিচালক ও নায়কের বিচারের আওতায় আনা এবং প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়া ইন্টারন্যাশনালকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার দাবিতে ইসলামী সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা এসব কথা বলেন,

২৪ ঘণ্টার মধ্যে শাপলা মিডিয়া আনুষ্ঠানিক ক্ষমা না চাইলে ধর্ম অবমাননার দায়ে তাদের বিরুদ্ধে কোর্টে মামলা করা হবে, এবং সাথে সাথে দেশপ্রেমিক তৌহিদী জনতাকে নিয়ে মাঠ পর্যায়ে ব্যাপক প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ গড়ে তুলতে আমরা বাধ্য হবো।

এ প্রসঙ্গে জোট দায়িত্বশীলরা দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেন, আমরা যা বলছি তাই করব ইনশাল্লাহ।সাংস্কৃতিক জোটের সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা এইচএম সাইফুল ইসলামের সঞ্চালনায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন জোটের সভাপতি মাওলানা আবুল কালাম আজাদ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দেশ বরেণ্য আলেমে দীন জাতীয় ওলামা-মাশায়েখ-আইম্মা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী। বক্তব্য রাখেন জোটের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আবু সুফিয়ান, মাওলানা ওমর ফারুক, মাওলানা ফেরদাউস আল আজাদ, মাওলানা হযরত মাওলানা জামাল উদ্দিন ও মো শরিফুল ইসলাম প্রমুখ সাংস্কৃতিক নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথি আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী তার বক্তব্যে বলেন, দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখা, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা করা সরকারের দায়িত্ব। আর এগুলো বিনস্ট করার গুরুদায়িত্ব পালন করছে শাপলা মিডিয়া।

দেশপ্রেমের ফেক পোশাক গায়ে পড়ে স্বাধীনতা-সার্বভৌম দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাধানো ও শান্তি-শৃঙ্খলা সুন্দর পরিবেশ বিনষ্ট করার সুদুরপ্রসারী পরিকল্পনা নিয়েই লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহর কলেমা, দাড়ি, টুপি, সুন্নতি লেবাস, মসজিদ-মাদ্রাসা সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করার দুঃসাহস দেখিয়েছে। সাথে সাথে দেশি হাজারো অভিনয় শিল্পী থাকলেও ভাড়া করে ভারতীয় হিন্দুত্ববাদী অভিনেতা দেবকে দিয়ে ঈমানদার মুসলমানের দমন করার যে দৃশ্য তুলে ধরেছে, এটা নিঃসন্দেহে ইসলাম, আল্লাহ-রাসুলকে অবমাননার শামিল এবং বিশ্বব্যাপী মুসলমানদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ এর অন্যতম কারণ।

আল্লামা ফয়েজী তাই অনতিবিলম্বে নায়ক, প্রকাশক সেলিম খান, পরিচালক শামীম আহমেদ রনিসহ মিডিয়া কর্তৃপক্ষকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানান এবং নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে দেশে পরবর্তীতে উদ্বুত যেকোন পরিস্থিতির দায়-দায়িত্ব সরকার এবং শাপলা প্রোডাকশন এর উপর বর্তাবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমরা বিভিন্ন ডকুমেন্টারি ও মিডিয়ার মাধ্যমে ১৯৭১ সালে এবং স্বাধীনতা পরবর্তী গ্রেপ্তারকৃত রাজাকারদের কারো দাড়ি-টুপি সুন্নতি লেবাস ছিলোনা। অথচ শতকরা ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে বিভিন্ন মুভি, সিনেমা, নাটক মঞ্চায়নের ক্ষেত্রে নিকৃষ্ট ও কুৎসিত চরিত্রকে সুন্নতি লেবাসে সজ্জিত করার মাধ্যমে ধর্ম অবমাননা প্রতিনিয়ত করেই যাচ্ছে এবং বর্তমানে করছে। যার দায় সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ও এড়াতে পারে না। এসব ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়কে সময়োপযোগী যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করার আহ্বান জানানো হয়।

সভাপতি তার বক্তব্যের একপর্যায়ে কমান্ডো মুভি নায়ক, প্রকাশক ও পরিচালককে ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়ে বলেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে শাপলা প্রোডাকশনকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। যদি তারা ক্ষমা না চায়, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার দায়ে আমরা আইনের আশ্রয় গ্রহণ করেআদালতে মামলা দায়ের করব।

তিনি উদাহরণ টেনে বলেন, কাউকে হত্যা করে খুনি যেমন লাশ গুম করার মাধ্যমে নিজেকে নির্দোষ দাবি করার নৈতিক অধিকার রাখেনা। ঠিক তেমনি কমান্ডো মুভি কর্তৃপক্ষ মুভি তৈরীর মাধ্যমে মুসলমানদের হৃদয়ে রক্তক্ষণের পর তাদের সাইট থেকে শুধুমাত্র টিজার সরিয়ে নিয়েই তাদের কৃতকর্মের দায়-দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পেতে পারে না।

সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান বলেন, যে অনুমতির মাধ্যমে ভারতীয় নায়ক দেবকে বাংলাদেশের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় অভিনয়ের সুযোগ দিয়েছে, সে অনুমতি প্রত্যাহার করতে হবে। সবশেষে প্রধান অতিথির দোয়া ও মোনাজাতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

LEAVE A COMMENT